শুক্রবার, ২১ জু ২০২৪, সময় : ১১:৩২ pm

সংবাদ শিরোনাম ::
পুলিশকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশ, তীব্র প্রতিবাদ বিপিএসএর মোদির আমন্ত্রণে দিল্লির উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রী নাচোল সোনালী অতীত ফুটবল টুর্নামেন্টের সমাপনী ও ক্রেস্ট বিতরণ ঢাকাস্থ্য নাচোল উপজেলা সমিতি সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় নাচোলে মেধাবী শিক্ষার্থী ও অসচ্ছল ভ্যানচালকের মাঝে চেক বিতরণ সড়ক দুর্ঘটনায় মোহনপুরে এনজিও কর্মী নিহত রাসেল’স ভাইপার : গুজব সত্যের চেয়ে ঝোড়োবেগে চলে! নাচোলে হত্যা মামলার আসামির আত্মহত্যা পবায় বয়স বাড়িয়ে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত পপি, তদন্ত কমিটি গঠন নগরীতে কিছুটা বেড়েছে গরুর চামড়ার দাম, ছাগলের বিক্রি হয়নি দীর্ঘদিন ব্যবহারে ওয়াই-ফাইয়ের পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে বের করবেন যেভাবে নানা উদ্যোগে নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না ভেজাল ওষুধ উখিয়ায় পাহাড়ধসে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৯ জনের মৃত্যু নওগাঁর নিয়ামতপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক নিহত সমলিঙ্গ বিয়ের অনুমতি দিলো থাইল্যান্ডের পার্লামেন্ট আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে তানজিম সাকিবকে আইসিসির জরিমানা রাজধানীতে টিকিট না পেয়ে মধুমিতা হলে ভাঙচুর পুলিশের আরেক সাবেক কর্মকর্তার দুর্নীতি তদন্তে নামছে দুদক? পুঠিয়ায় ফেসবুকে ভিডিও পোস্ট দিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা একুশে পদকপ্রাপ্ত কবি অসীম সাহা আর নেই
তানোরে পল্লীবিদ্যুতের মিটার গোপণে স্থানান্তর, থানায় মামলা

তানোরে পল্লীবিদ্যুতের মিটার গোপণে স্থানান্তর, থানায় মামলা

মমিনুল ইসলাম মুন, বিশেষ প্রতিবেদক :
রাজশাহীর তানোরে পল্লীবিদ্যুৎ অফিসকে না জানিয়ে গোপণে মিটারের সিল কেটে মিটার স্থানান্তর চক্রের মুলহোতা জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম জহুরুল ইসলাম। তিনি তানোর উপজেলার কামারগাঁ ইউনিয়নের মাদারিপুর গ্রামের বাসিন্দা জয়মতুল্লাহর পুত্র জাহাঙ্গীর আলম।

জানা গেছে, চলতি বছরের গত ২৪ মার্চ মামলা হলেও রহস্যজনক কারণে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করে উল্টো গ্রাহককে মিমাংসা করার নির্দেশ দেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মজিবুর বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। এতে দুই গ্রাহক চরম বেকায়দায় পড়েছেন। ফলে দ্রুত সময়ের মধ্যে মামলার আসামীকে গ্রেফতারের জোর দাবি তুলেছেন ভুক্তভোগী দুই গ্রাহকসহ ডিজিএম।

মামলার এজাহারে বলা হয়, রাজশাহী পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির প্যাডে ১৯৬ নম্বর স্বারকের প্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে, জাহাঙ্গীর পিতা জয়মতুল্লাহ সাং মাদারিপুর। উক্ত ব্যক্তি তানোর জোনাল অফিসের আওতাধীন বিভিন্ন এলাকায় অর্থের বিনিময়ে অবৈধ ভাবে বৈদ্যুতিক মিটার এক স্থান থেকে অন্য স্থানে স্থানান্তর করে দিচ্ছেন। যেমন হিসাব নম্বর ৪৬৪-২৬২০ গ্রাহকের নাম আব্দুর রশিদ পিতা বদের আলী ও হিসাব নম্বর ৪৬৪-২৬৫০ গ্রাহক বদের আলী পিতা মাশি উভয়ের গ্রাম ধানুরা। এই দুজন গ্রাহকের আবাসিক মিটার অফিসকে অবহিত না করে অবৈধভাবে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে স্থানান্তর করে দিয়েছেন। যা বিদ্যুৎ আইন ২০১৮ অনুযায়ী কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ব্যতিত বৈদ্যুতিক স্থাপনা/ইক্যুইপমেন্টে দন্ডনীয় অপরাধ।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার কামারগাঁ ইউপির ধানুরা গ্রামের রশিদ ও তার পিতা বদের আলীর ঘর ওয়ারিং শেষে মিটারের সিল কেটে অন্যত্র স্থানান্তর করেন জাহাঙ্গীর। বিদ্যুৎ বিল দেয়ার জন্য মিটার রিডার এসে এ অবস্থা দেখে গ্রাহককে জিজ্ঞেস করেন কে করেছে মিটারের এ অবস্থা।

গ্রাহকরা বলেন জাহাঙ্গীর। মিটার রিডার বিষয়টি পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। বিষয়টি জানার পর ডিজিএম ওই দুজন গ্রাহককে অফিসে তলব করেন এবং মিটারের সিল কাটার বিষয়টি ডিজিএমকে খুলে বলেন। এসময় দু’জন গ্রাহক লিখিত অভিযোগ দেন ডিজিএম বরাবর। অভিযোগের প্রেক্ষিতে ডিজিএম থানায় এজাহার দায়ের বা মামলা করেন জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে।

এছাড়াও জাহাঙ্গীরের ছোট ভাই তানোর পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের ইলেক্ট্রিশিয়ান লিটন অধিক টাকার বিনিময়ে এবং কর্তৃপক্ষের নাম করে আর্থিক সুবিধা নিয়ে বিদ্যুৎ লাইন পাইয়ে দিতেন। ঘটনা বুঝতে পেরে এবং টাকার বিষয়টি প্রমান পাওয়ায় তাকে পল্লীবিদ্যুৎ তানোর জোনাল অফিস থেকে বহিষ্কার করেন। লিটন এখনো বহিষ্কার অবস্থায় আছেন। সে সুযোগ কাজে লাগিয়ে তার বড় ভাই একই কায়দায় বৈদ্যুতিক মিটার টাকার বিনিময়ে স্থানান্তর করে থাকেন।

স্থানীয়রা জানান, জাহাঙ্গীর ও লিটন তারা দুই ভাই পল্লীবিদ্যুৎ গ্রাহকের কাছে এখন মুর্তিমান আতঙ্ক। এবিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মজিবুরের মোবাইলে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এবিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রহিম বলেন, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাহাঙ্গীর আলম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তারা দুই ভাই ষড়যন্ত্রের শিকার। রা/অ

স্যোসাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

ads




© All rights reserved © 2021 ajkertanore.com
Developed by- .:: SHUMANBD ::.