শনিবর, ২২ জু ২০২৪, সময় : ১২:৫৮ pm

সংবাদ শিরোনাম ::
পুলিশকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশ, তীব্র প্রতিবাদ বিপিএসএর মোদির আমন্ত্রণে দিল্লির উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রী নাচোল সোনালী অতীত ফুটবল টুর্নামেন্টের সমাপনী ও ক্রেস্ট বিতরণ ঢাকাস্থ্য নাচোল উপজেলা সমিতি সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় নাচোলে মেধাবী শিক্ষার্থী ও অসচ্ছল ভ্যানচালকের মাঝে চেক বিতরণ সড়ক দুর্ঘটনায় মোহনপুরে এনজিও কর্মী নিহত রাসেল’স ভাইপার : গুজব সত্যের চেয়ে ঝোড়োবেগে চলে! নাচোলে হত্যা মামলার আসামির আত্মহত্যা পবায় বয়স বাড়িয়ে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত পপি, তদন্ত কমিটি গঠন নগরীতে কিছুটা বেড়েছে গরুর চামড়ার দাম, ছাগলের বিক্রি হয়নি দীর্ঘদিন ব্যবহারে ওয়াই-ফাইয়ের পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে বের করবেন যেভাবে নানা উদ্যোগে নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না ভেজাল ওষুধ উখিয়ায় পাহাড়ধসে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ৯ জনের মৃত্যু নওগাঁর নিয়ামতপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক নিহত সমলিঙ্গ বিয়ের অনুমতি দিলো থাইল্যান্ডের পার্লামেন্ট আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে তানজিম সাকিবকে আইসিসির জরিমানা রাজধানীতে টিকিট না পেয়ে মধুমিতা হলে ভাঙচুর পুলিশের আরেক সাবেক কর্মকর্তার দুর্নীতি তদন্তে নামছে দুদক? পুঠিয়ায় ফেসবুকে ভিডিও পোস্ট দিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা একুশে পদকপ্রাপ্ত কবি অসীম সাহা আর নেই
চারঘাটে বিএমডিএর রোপিত ২৬ হাজার তালগাছ গেল কই?

চারঘাটে বিএমডিএর রোপিত ২৬ হাজার তালগাছ গেল কই?

নিজস্ব প্রতিবেদক :
পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও বজ্রপাতে প্রাণহানি কমাতে ২০১৭ সালে সারা দেশে সড়কের দুই ধারে তালগাছের চারা রোপণের নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সেই আলোকে পরের বছর বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ), বন বিভাগ এবং ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর রাজশাহীর চারঘাটে প্রায় ২৬ হাজার তালগাছের চারা রোপণ কর্মসূচি গ্রহণ করে।

প্রকল্প বাস্তবায়নকারী কর্মকর্তারা বলছেন, ৫ বছর আগে সেখানে তালগাছের চারা লাগানো হয়েছে। কিন্তু স্থানীয়রা বলছেন, ওই সময় তারা কাউকে চারা লাগাতে দেখেননি এবং সেখানে কোনো তালগাছই নেই। প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে এত বিপুলসংখ্যক তালগাছ কোথায় গেল? অভিযোগ উঠেছে, চারা রোপণ না করে প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে।

বিএমডিএ সূত্রে জানা যায়, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কৃষি মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে বিএমডিএ রাজশাহী অঞ্চলে ১৪ লাখ তালগাছের চারা রোপণের কর্মসূচি গ্রহণ করে। প্রকল্পের আওতায় চারঘাটের জয়পুর বাজার থেকে তালতলা, হলিদাগাছি, দিঘলকান্দী, শলুয়া ও বালাদিয়াড় এলাকার ১০ কিলোমিটার জায়গায় ২৬ হাজার চারা রোপণের সদ্ধিান্ত হয়। প্রকল্পের জন্য ব্যয় ধরা হয় ২ কোটি ৪৫ লাখ টাকা।

সম্প্রতি প্রকল্প এলাকা সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, সেখানে বিএমডিএর একটি সাইনবোর্ড ছাড়া আর কিছুই নেই। আদৌ তালগাছের চারা রোপণ করা হয়েছিল কিনা তা নিয়েও সন্দেহ পোষণ করছেন স্থানীয় লোকজন। এলাকার কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত ৪ বছরে তারা কাউকে তালগাছের চারা লাগাতে দেখেননি। এলাকাবাসী জানান, প্রকল্প নেওয়া হলেও ঠিকাদার ও বিএমডিএর কর্মকর্তারা মিলে পুরো টাকা তুলে নিয়েছেন বলে তাদের ধারণা। কারণ এলাকায় তালের চারা রোপণ করতে তারা কাউকে দেখেননি।

চারঘাটের শলুয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জিয়াউল হক মাসুম বলেন, ২০১৮-১৯ সালের দিকে আমাদের এলাকায় কেউ তালবীজ কিংবা চারা রোপণ করেছিলেন বলে কখনও শুনিনি। এমনটা হলে এলাকার লোকজন আমাদের বলতেন। তাছাড়া ঠিকাদার ও কর্মকর্তারা প্রকল্প বাস্তবায়নে চেয়ারম্যানের সহযোগিতার জন্য পরিষদ কার্যালয়ে গিয়ে থাকেন। এমনটা আমি দায়িত্বে থাকাকালে দেখিনি। কীভাবে প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছে জানি না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রকল্প বাস্তবায়নকারী কর্তৃপক্ষ বিএমডিএর চারঘাটের সহকারী প্রকৌশলী আল মামুন বলেন, চারঘাটের প্রস্তাবিত সড়কগুলোর দুই ধারের ১০ কিলোমিটার এলাকায় তালগাছের চারা রোপণ করা হয়েছে। তালের চারা বেড়ে উঠতে সময় লাগে। এজন্য হয়তো এখনও দৃশ্যমান হয়নি। কিছুদিন পর দেখা যাবে।

চারঘাট উপজেলা বন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, এ প্রকল্পে কোনো অনিয়ম হয়নি। তালগাছের চারা রোপণ করা হয়েছে। পাশাপাশি আমাদের নার্সারিতে চারা উৎপাদন করছি। সেগুলোও পর্যায়ক্রমে অন্য এলাকার সড়কের ধারে লাগানো হবে।

তবে প্রকল্পের পরিচালক ও বিএমডিএর নির্বাহী প্রেেকৗশলী তরিকুল ইসলাম অনিয়মের কথা স্বীকার করে বলেন, ২০১৯ সালে তালগাছের চারা লাগানো হয়। কিন্তু আমরা পরিদর্শন করে অনিয়ম পেয়েছি। এজন্য ঠিকাদারকে বিল পরিশোধ করা হয়নি। ঠিকাদারের সঙ্গে বিষয়টি সমন্বয় করে পুনরায় তালগাছের চারা রোপণ করা হবে। রা/অ

স্যোসাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

ads




© All rights reserved © 2021 ajkertanore.com
Developed by- .:: SHUMANBD ::.