রবিবর, ১৯ মে ২০২৪, সময় : ১১:৫৪ pm

সংবাদ শিরোনাম ::
আইপিএলের প্লেø-অফে প্রতিপক্ষ হিসেবে যাদের পাচ্ছে কলকাতা ও বেঙ্গালুরু ভিলেন ‘মিশা-ডিপজল দুজনেই মূর্খ’: নিপুণ কর্মঅধ্যায় তাঁকে অমরত্ব দিয়েছে : দেবব্রত চক্রবর্তী বিষ্ণু ঝিনাইদহ-৪ আসনের সাংসদকে খুঁজে পেতে ডিবিতে মেয়ে ডরিন আসাম রাজ্যের শিলচরের ভাষাশহিদদের রাজশাহীতে স্মরণ চৌদ্দপুরুষের জন্য দেশের টাকা লুটে নিচ্ছে ক্ষমতাসীনরা : রিজভী তানোরে বাংলা টিভির ৮ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত তানোরে দ্বিতীয় বারেরমত নির্বাচিত চেয়ারম্যান ময়নাকে গণসংবর্ধনা তালবীজ রোপণ প্রকল্পেও দুর্নীতির থাবা : সর্বাগ্রে দরকার সুশাসন দেশে-বিদেশে চোরাচালানে ঢাল হয়ে উঠছে কুরিয়ার সার্ভিস চারঘাটে বিএমডিএর রোপিত ২৬ হাজার তালগাছ গেল কই? পান চাষিদের নিয়ে ৯ দিনব্যাপি প্রশিক্ষণের উদ্বোধনে প্রতিমন্ত্রী দারা জেলা পরিষদের উদ্যোগে রাজশাহীতে নির্মিত হবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার অফিসের তালা ভেঙ্গে প্রধান শিক্ষকের চেয়ার দখল, লাপাত্তা সহকারি শিক্ষক রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে আগুন ঢাকায় দেখা মিলেছে, গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির ডিবি পুলিশের অভিযানে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার রাজশাহীতে কৃষিমন্ত্রী আব্দুস শহীদ এমপি : কৃষক বাঁচলে, দেশ বাঁচবে নাচোলে শেখ হাসিনার প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপিত গোদাগাড়ীতে পুলিশের অভিযানের ফেনসিডিলসহ ২ যুবক আটক
কোনো গাড়ি-বাড়ি নেই মমতার

কোনো গাড়ি-বাড়ি নেই মমতার

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যক্তিগত গাড়ি ও নিজের কোনো বাড়ি নেই।  হাতে নগদ এক লাখেরও কম রুপি রয়েছে। নন্দীগ্রামের প্রার্থী হিসাবে বুধবার হলদিয়ায় মহকুমাশাসকের দফতরে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই হলফনামায় পাওয়া গেছে এমন তথ্য। এ খবর জানিয়েছে কলকাতার প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা।

হলফনামায় দাখিল করা সম্পত্তির বিবরণ অনুযায়ী, ২০১৯-২০ আর্থিক বছরে মমতার বার্ষিক আয় ছিল ১০ লাখ ৩৪ হাজার ৩৭০ টাকা। ২০১৮-১৯ আর্থিক বছরে বার্ষিক আয় ছিল ২০ লাখ ৭১ হাজার ১০ টাকা।  এর আগের তিনটি আর্থিক বছরের আয়ের হিসাবও দেওয়া রয়েছে ওই হলফনামায়। তবে তার মধ্যে সর্বোচ্চ আয় ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষেই।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে নগদ রয়েছে ৬৯ হাজার ২৫৫ রুটি।  এছাড়া কয়েকটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এবং ন্যাশনাল সেভিং সার্টিফিকেট অনুযায়ী অস্থাবর সম্পত্তি রয়েছে ১৬ লাখ ৭২ হাজার ৩৫২ রুপি ৭১ পয়সা। এ অস্থাবর সম্পত্তির মধ্যেই রয়েছে কিছু অলংকার, যার পরিমাণ ৯ গ্রাম ৭৫০ মিলিগ্রাম।
হলফনামায় বলা হয়েছে, তার নামে কোনো গাড়ি, চাষযোগ্য জমি অথবা বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহারের জন্য কোনো জমি নেই।  পৈতৃকসূত্রে তিনি কোনো সম্পত্তি পাননি। পাশাপাশি তার কোনো ঋণ নেই।

হলফনামায় অনুযায়ী, ১৯৮২ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত যোগেশ চন্দ্র চৌধুরী কলেজ থেকে আইনে স্নাতক হন তিনি। তার আগে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। সূত্র : যুগান্তর। আজকের তানোর

স্যোসাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

ads




© All rights reserved © 2021 ajkertanore.com
Developed by- .:: SHUMANBD ::.